You are here:

প্রতিষ্ঠানের ইতিহাস ও পরিচিতি

হায়দরগঞ্জ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন লিঃ হায়দরগঞ্জ মডেল স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা। বর্তমান ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি বিশিষ্ট সমাজ সেবক, ব্যবসায়ী ও শিক্ষানুরাগী আলহাজ্ব মোঃ হাবিবুর রহমান। অত্র বিদ্যালয়টি ২০০৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। গ্রামের নৈসর্গিক মনোরোম পরিবেশে স্কুলটির অবস্থান। রায়পুরের পশ্চিমাঞ্চল চরাঞ্চল হিসেবে পরিচিত। এই অঞ্চলের মানুষের বহুদিনের আশা আকাঙ্খা ছিল একটি যুগোপুযোগী, মানসম্মত আধুনিক ও নৈ ২০১০ সালের জে.এস.সি পরীক্ষায় শতভাগ পাশ সহ ৪টি জুনিয়র বৃত্তি (২টি টেলেন্টপুল) লাভ করে। ২০১১ সালের জে.এস.সি পরীক্ষায়ও শতভাগ পাশ করে। এছাড়াও স্কুলটির প্রাইমারী শাখায়ও ২০০৯ সাল থেকে অদ্যাবধী শতভাগ পাশ সহ নিয়মিত বৃত্তি লাভ করছে। স্কুলটির বর্তমান ছাত্র-ছাত্রী সংখ্যা ৬৬৮ জন। হায়দরগঞ্জ মডেল স্কুল লক্ষ্মীপুর তথা অত্র অঞ্চলের মানুষের আশা আকাঙ্খা, স্বপ্ন ও আস্থার প্রতিফলন ঘটিয়ে বীরদর্পে এগিয়ে যাবে চূড়ান্ত লক্ষ্যে।

History



প্রতিষ্ঠা কাল : ২০০৯ খ্রীঃ

ইতিহাস : লক্ষ্মীপুর জেলাধীন রায়পুর উপজেলার ডাকাতিয়া নদীর পশ্চিম থেকে শুরু করে চাঁদপুরের বিশাল মেঘনা পর্যন্ত বিস্তৃত এলাকায় দীর্ঘ দিন পর্যন্ত একটি মান সম্মত স্কুলের ব্যাপক চাহিদা থাকলেও কার্যকর উদ্যোগের অভাবে এই এলাকায় কোন মান সম্মত স্কুল প্রতিষ্ঠিত হয়নি। ফলে এই এলাকার ছাত্র-ছাত্রীদেরকে অনেক কষ্ট করে এবং প্রচুর অর্থ ব্যয় করে রায়পুর, লক্ষ্মীপুর, নোয়াখালী, চাঁদপুর এমনকি ক্ষেত্র বিশেষে ঢাকা পর্যন্ত মানসম্মত শিক্ষার জন্য দৌড়াতে হত। অর্থশালীদের জন্য বিষয়টি সহনীয় হলেও এই অঞ্চলের দরিদ্রদের জন্য মানসম্মত শিক্ষা অর্জনের জন্য ছেলেমেয়েদেরকে দূরবর্তী এলাকায় প্রেরণ করা ছিল স্বপ্নের বিষয়। সর্বশেষে ২০০৮ সালের শেষের দিকে স্কুলের বর্তমান অধ্যক্ষ জনাব, এ কে এম ফজলুল হক এর প্রস্তাবনায় এলাকার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক এবং শিক্ষানুরাগী জনাব, এ এস এম আলাউদ্দিন ও জনাব, মোঃ হাবিবুর রহমান প্রাথমিক পর্যায়ে একটি মানসম্মত স্কুল প্রতিষ্ঠার চিন্তা শুরু করেন। পরবর্তীতে হাওলাদার ফাউন্ডেশনের সভাপতি জনাব, মোজহারুল হক তছলিম হাওলাদার সাহেবের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি তার নিজের এবং হাওলাদার পরিবারের পক্ষ থেকে স্কুলটি প্রতিষ্ঠায় সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। এই পর্যায়ে জনাব, মোঃ হাবিবুর রহমানের আহ্বানে এলাকার সর্বস্তরের বিশিষ্ট ব্যক্তি বর্গের এক যৌথ সভায় হায়দরগঞ্জে একটি মান সম্মত স্কুল প্রতিষ্ঠার জন্য চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। পরবর্তীতে আহ্বায়ক কমিটির তত্ত্বাবধানে স্কুল স্থাপনের কাজ শুরু করা হয়। স্কুল পরিচালনার সুবিধার্থে হায়দরগঞ্জের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, শিক্ষানুরাগী ও সমাজ সেবকদের সমন্বয়ে হায়দরগঞ্জ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন লিমিটেড নামে একটি সামাজিক উন্নয়ন মূলক কোম্পানী গঠন করা হয়। কোম্পানীর চেয়ারম্যন নির্বাচিত হন জনাব, মোজহারুল হক হাওলাদার এবং ম্যানেজিং ডিরেক্টর নির্বাচিত হন জনাব, মোঃ হাবিবুর রহমান। ২০০৯ সালের ১লা জানুয়ারী মাদ্রাসা ক্যাম্পাস সংলগ্ন ভাড়া ভবনে স্কুলের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন আওলাদে রাসুল (সাঃ) আল্লামা সাইয়্যেদ মাওলানা মোঃ আনোয়ার হোসাইন তাহের জাবেরী আল-মাদানী। পরবর্তীতে ২০১০ সালে গাজী মার্কেটস্থ নিজস্ব ভবনে স্কুলটি স্থানান্তরিত হওয়ার পর আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্ভোধন ঘোষনা করেন লক্ষ্মীপুরের তৎকালীন জেলা প্রশাসক জনাব রফিকুল ইসলাম সরকার। ১০/০১/২০১০ইং তারিখে হায়দরগঞ্জ মডেল স্কুল কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক পাঠদান ও স্থাপনের অনুমতি লাভ করে। হায়দরগঞ্জ মডেল স্কুল নিজ নামে পরীক্ষা দেয়ার অনুমতি সহ ব্যানবেইস কোড নং অর্জন করে। কোড নম্বর ১৩৪২৭৬। ২০০৯ শিক্ষাবর্ষে বিভিন্ন শ্রেণিতে ৪০৯ জন ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করার মধ্য দিয়ে হায়দরগঞ্জ মডেল স্কুল তার গৌরবময় যাত্রা শুরু করে। বর্তমানে স্কুলে সর্বমোট ছাত্র-ছাত্রী সংখ্যা ৬৬৮ জন। স্কুলে বর্তমানে একজন অধ্যক্ষ, একজন প্রধান শিক্ষক(ইনচার্জ)সহ ১৭ জন শিক্ষক শিক্ষিকা এবং ০৫ জন কর্মচারী কর্মরত রয়েছেন। ২০০৯ইং সাল থেকেই হায়দরগঞ্জ মডেল স্কুলে নিয়মিত একাডেমিক কার্যক্রম পরিচালনার পাশাপাশি বিভিন্ন সহপাঠক্রম কার্যাবলি পরিচালনা করেছে। ০২টি বিতর্ক অনুষ্ঠান, ০১টি যৌতুক বিরোধী আলোচনা সভা, ০১টি নারী নির্যাতন বিরোধী আলোচনা সভা এবং ০১টি ইভটিজিং বিষয়ক সচেতনতা মূলক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। প্রতি বছর স্কুলের উদ্যোগে ছাত্রছাত্রীদের মাঝে ২০০০ গাছের চারা বিনা মূল্যে বিতরণ করা হয়। স্কুলের পক্ষ থেকে সমাজের বিভিন্ন স্তরে বিশুদ্ধ পানি পান, যৌতুক বিরোধী বিয়ে এবং সেনেটারী ল্যাট্রিন ব্যবহারের জন্য সচেতনতা মূলক প্রচারণা চালানো হয়। এছাড়া স্কুলের সকল শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীর প্রত্যেকে ০১জন নিরক্ষরকে স্বাক্ষরতা জ্ঞান প্রদান ও একজন স্কুল বিমুখ ছেলে/মেয়েকে স্কুলগামী করার জোর প্রচেষ্টা গ্রহণ করেন। এছাড়া স্কুলের পক্ষ থেকে মহান স্বাধীনতা দিবস, বিজয় দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের জন্য হায়দরগঞ্জ মডেল স্কুলের দ্বার সবসময় উন্মুক্ত। মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদেরকে বৃত্তি প্রদানের পাশাপাশি দরিদ্র ছাত্র-ছাত্রীদেরকে বিনা বেতনে অধ্যয়নের সুযোগদান ও বিনামূল্যে বই সরবরাহ এই স্কুলের একটি বিশেষ বৈশিষ্ট্য। হায়দরগঞ্জ মডেল স্কুল ছাত্র-ছাত্রীদের যাতায়াতের সুবিধার্থে সারা বছর নাম মাত্র ভাড়ায় ০৯টি স্কুল ভ্যান ও ১টি বাসের ব্যবস্থা রয়েছে। আমাদের প্রত্যয় হলো অর্থের অভাবে এই এলাকার কোন ছাত্র-ছাত্রীর গুনগত শিক্ষার পথ রুদ্ধ হতে পারবে না। আমাদের ছাত্র-ছাত্রীরা যাতে মানুষের মত মানুষ হয়ে দেশ এবং জাতির সেবায় আত্মনিয়োগ করতে পারে এ জন্য আমাদের প্রচেষ্টা নিরন্তর অব্যাহত রয়েছে। তিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তাদের সন্তানদের লেখাপড়া করানো। গণ মানুষের সেই আকাঙ্খার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে হায়দরগঞ্জ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন লিঃ হায়দরগঞ্জ মডেল স্কুল প্রতিষ্ঠা করে। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই স্কুলটি রায়পুরের পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের আস্থার মনিকোঠায় স্থান করে নেয়। চৌকষ ব্যবস্থাপনা কমিটি, পরিশ্রমী শিক্ষক মন্ডলী, কর্মচারী, অভিভাবক এবং ছাত্র-ছাত্রীদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় স্কুলটি শুরুর বছর থেকেই ভাল ফলাফল করতে শুরু করে। এই অঞ্চলের মানুষ, স্কুলটিকে নিজেদের আকাঙ্খার স্কুল হিসেবে গ্রহণ করে। ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা দ্রুত বাড়তে থাকে। ফলে বিদ্যালয়টিতে দুই শিফ্ট চালু করা হয়। এর ফলে স্কুলের শিক্ষার মান ও ফলাফল উত্তোরত্তোর ভালো হচ্ছে।